বরিশালে পরকীয়ার সন্দেহে স্ত্রীর চোখ উৎপাটনের চেষ্টা

0

স্টাফ রির্পোটার,  বরিশালের বাকেরগঞ্জে পরকীয়ার সন্দেহে স্ত্রীকে কুপিয়ে আহত করার পাশাপাশি চোঁখ উৎপাটনের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে।
সোমবার (০৬ আগষ্ট) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার চরাদী ইউনিয়নের সন্তোষদী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
গুরুত্বর আহত অবস্থায় শাহিনুর বেগম (৪০)কে মঙ্গলবার (০৭ আগষ্ট) বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আহত শাহিনুর বেগম জানান, সোমবার রাত আড়াইটার দিকে তার স্বামী আঃ ছত্তার আরো ১ জন সহযোগী নিয়ে ঘরে আসেন। দুজনে মিলে তাকে আটকে কুপিয়ে জখম করে এবং ছোড়া দিয়ে চোখেও আঘাত করে।
শাহিনুর বেগম জানান, অনেক আকুতি-মিনতি করে মারধরের এ বিষয়টি ডাকাতি বলে চালিয়ে দেয়ার আশ্বাসে প্রাণে রক্ষা পাই।
আর ডাকাতির ঘটনা সাজাতে তার স্বামীও নিজেও নিজের শরীরকে ক্ষত করেন বলে দাবী শাহিনুর।
তবে একই হাসপাতালের সার্জারী পুরুষ ওয়ার্ডে ভর্তিরত অবস্থায় থাকা চরাদী ইউনিয়নের সন্তোষদী বাজার জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা আঃ ছত্তার জানান, রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে তিন সদস্যের একটি ডাকাত দল আমাদের ঘরে প্রবেশ করে। আমি ঘরের সামনের কক্ষে ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় দুই জন এসে আমাকে বেধে মারধর করে। তবে ওই সময় ভিতরে কি হয়েছে তা আমি দেখতে পাইনি।
তার দাবী শাহিনুরের সাথে বাকেরগঞ্চের চর আইচা গ্রামের রাব্বির সাথে পরকীয়ার সম্পর্ক রয়েছে। সে-ই এই ঘটনা ঘটিয়েছে।
এ বিষয়ে বাকেরগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) ফয়েজ উদিন মৃধা জানান, আমরা ডাকাতির খবর শুনে সকালেই হাসপাতালে যাই। তবে আহত শাহীনুরের সাথে কথা বলে জানতে পারি এটা ডাকাতি নয়, তার স্বামী মাওলানা ছত্তার এঘটনা ঘটিয়েছে। বিষয়টি সুষ্ঠ তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
এদিকে বেলা ৩টার দিকে স্ত্রী শাহীনুরের অভিযোগের ওপর ভিত্তি করে মাওলানা ছত্তারকে আটক করা হয়েছে. পাশাপাশি এ ঘটনায় শাহিনুরের বোন বাদী হয়ে বাকেরগঞ্জ থানায় একটি মামলাও দায়ের করেছেন বলে জানিয়েছেন ওসি তদন্ত।
অপরদিকে শাহীনুরের চোখের আঘাতের বিষয় নিশ্চিত হলেও এ মুহুর্তেই বিস্তারিত কিছু জানাতে পারেননি চিকিৎসকরা। শাহীনুরের উন্নত চিকিৎসার জন্য শেবাচিম হাসপাতালের ডাক্তার জাতীয় চক্ষু ইনস্টিটউট এ প্রেরন করেন। শাহিনুরের স্বজনরা গতকাল সন্ধ্যায় এম্বুলেন্স যোগে ঢাকা নিয়ে যায়।

Share.

Leave A Reply